লিপস্টিক এর গোপন খবর – Lipstick Side Effects

India Funny People!

জানুন লিপস্টিক এর ভয়াবহ গোপন কথা !

ঠোঁটর আকর্ষণীয়তা বাড়ানোর জন্য, আরো মোহময়ী করে তোলার জন্য যে প্রসাধনটি ব্যবহার করা হয়, তা হল লিপস্টিক। এককথায় বলা যেতে পারে লিপস্টিক ঠোঁটের অলংকার।

Lipstick Side Effectsকিন্তু ঠোঁটের শোভা বাড়ালেও, লিপস্টিকের রয়েছে কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। কয়েকটি ক্ষতিকারক উপাদান রয়েছে লিপস্টিকে। তবে তা খুব সামান্য মাত্রার হলেও প্রতিদিন লিপস্টিক ব্যবহার করলে এই উপাদানগুলো থেকেই ঠোঁটের ত্বকে নানারকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই লিপস্টিক লাগানোর আগে ও পরে নিতে হবে একটু বাড়তি সতর্কতা। আর করতে হবে ঠোঁটের নিয়মিত যত্ন।
ক্ষতিকর যা উপাদান আছে লিপস্টিকে:

লিপস্টিকের গায়ে ম্যানুফ্যাকচারিং এজেন্ট হিসেবে সিসা থাকার কথা উল্লেখ না থাকলেও, বেশ কয়েকটি গবেষণা থেকে জানা গেছে, লিপস্টিকে রয়েছে সিসা। শুধু সিসাই নয়, কিছু ব্র্যান্ডের লিপস্টিকে কোবাল্ট, ক্যাডমিয়াম ও টাইটেনিয়ামের মতো ধাতুও পাওয়া গেছে। বারবার জিভ দিয়ে ঠোঁট চাটলে বা খাবারের সঙ্গে শরীরে ঢুকে পড়ে এইসব উপাদান। যা থেকে ক্ষতি হতে পারে স্বাস্থ্যের। গাঢ় রঙের শেডে সবচেয়ে বেশি মাত্রায় থাকে এসব ধাতু। তাই চেষ্টা করুন গাঢ় রঙ এড়িয়ে চলার।

আজকাল পার্টি, বিয়েতে কিংবা অফিসেও অনেকেই লং লাস্টিং শেড ব্যবহার করতে পছন্দ করেন। কোনো কোনো ব্র্যান্ডের লং লাস্টিং লিপস্টিকে কৃত্রিম স্টেবিলাইজার থাকে, যা থেকে হতে পারে ক্যানসার। গাঢ় রঙকে হালকা করার জন্য দেওয়া হয় টাইটেনিয়াম ডাই-অক্সাইডের মতো উপাদান। গ্লিটারযুক্ত লিপগ্লসেও থাকতে পারে অভ্র। এই ধাতুগুলো থেকে ঠোঁটে গোটা বেরোতে পারে, ঠোঁট চুলকাতে পারে কিংবা হয়ে যেতে পারে ঠোঁট কালো। এমনটা হলে সঙ্গে সঙ্গে বন্ধ করে দিতে হবে ওই লিপস্টিকের ব্যবহার। ধাতব উপাদান ছাড়াও লিপস্টিক ঠোঁটের স্বাভাবিক আর্দ্রতা শুষে নেয়। তাই লিপস্টিক লাগানোর আগে ঠোঁটে ভ্যাসলিন লাগিয়ে নিলে আর্দ্রতা বজায় থাকবে।

লিপস্টিক লাগানোর ক্ষেত্রে সতর্কতা:

* লিপস্টিক লাগানোর আগে ঠোঁটে ভালো করে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিলে এটি লিপস্টিকের ক্ষতিকারক প্রভাব থেকে অনেকটাই ঠোঁটকে রক্ষা করবে।

* ম্যাট এবং লং লাস্টিং লিপস্টিক যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলতে হবে।

* তাড়াতাড়ি যেসব লিপস্টিক তুলে ফেলা যায় না- তা না লাগানোই ভালো।

* বাসায় ফিরেই লিপস্টিক তুলে ফেলতে হবে। তারপর ঠোঁটে ভ্যাসলিন লাগিয়ে নিতে হবে।

* ঠোঁট থেকে চামড়া উঠলে বা ঠোঁট শুকিয়ে গেলে সেই লিপস্টিক ব্যবহার বন্ধ করতে হবে।

* গাঢ় রঙের লিপস্টিক এড়িয়ে চলাই ভালো।

* লিপস্টিক লাগানোর পর ঠোঁট জিভ দিয়ে চাটা উচিত নয়।

* খাবার সময় লিপস্টিক তুলে ফেলা উচিত।

* দিনে দুই বারের বেশি লিপস্টিক ব্যবহার না করার চেষ্টা করতে হবে। প্রতিদিন লিপস্টিক লাগানো ঠিক নয়।

Tags: লিপস্টিক ব্যাবহার, লিপস্টিকের কূফল, লিপস্টিকের সাবধানতা, Lipstick bebohar, Lipstick er kufol, Lipstick behohare ki hoy, Lipstick, Effect of lipstick.